বৃহস্পতিবার   ১৭ জুন ২০২১ || ৪ আষাঢ় ১৪২৮ || ০৫ জ্বিলকদ ১৪৪২

অপরাজেয় বাংলা :: Aparajeo Bangla

ভারত না গেলেও ৮ জনের শরীরে করোনার ভারতীয় ধরন

স্পটলাইট ডেস্ক

০০:৫৭, ১ জুন ২০২১

আপডেট: ০০:৫৯, ১ জুন ২০২১

৫৭৯

ভারত না গেলেও ৮ জনের শরীরে করোনার ভারতীয় ধরন

যশোরে এ পর্যন্ত ভারতফেরত ও স্থানীয়সহ ১৫ জনের শরীরে করোনা ভাইরাসের ভারতীয় ধরন শনাক্ত হলো
যশোরে এ পর্যন্ত ভারতফেরত ও স্থানীয়সহ ১৫ জনের শরীরে করোনা ভাইরাসের ভারতীয় ধরন শনাক্ত হলো

যশোরের স্থানীয় আট রোগীর শরীরে করোনাভাইরাসের ভারতীয় ধরন শনাক্ত হয়েছে। শনাক্ত রোগীদের কারোরই ভারতে যাওয়ার কোনো ইতিহাস নেই। তাদের মধ্যে সাতজন পুরুষ ও একজন নারী। সবার বয়স ৫৬ বছরের নিচে।  

যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) জিনোম সেন্টারের সহযোগী পরিচালক অধ্যাপক ইকবাল কবীর জাহিদের নেতৃত্বে একদল গবেষক সোমবার এই ভারতীয় ধরন শনাক্ত করেন। ভারতীয় ধরন শনাক্তের বিষয়টি ইতিমধ্যে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, আইইডিসিআর, যশোরের স্থানীয় প্রশাসনকে অবহিত করা হয়েছে।

জিনোম সেন্টার থেকে জানানো হয়েছে, গত ২৯ মে চারজনের নমুনা অভয়নগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, তিনজনের নমুনা ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতাল এবং আরেকজনের নমুনা ঝিকারগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে যবিপ্রবির ল্যাবে পাঠানো হয়। 

সম্প্রতি ভারত ফেরত কোয়ারেন্টাইনে থাকা পরবর্তী সময়ে পজিটিভ হওয়ার হার যশোর জেলায় গড়ে ১০ শতাংশ থেকে ১৯ শতাংশ হয়। স্থানীয় সংক্রমণ হয়েছে কি না তা জানার জন্য স্থানীয় ৩৬ জনের নমুনা সিকোয়েন্সিংয়ে ভারতীয় ধরন শনাক্ত হয়।      

যবিপ্রবির গবেষক দলটি জানায়, ই১.৬১৭.২ নামের ধরনটি জিনোম সেন্টারে শনাক্ত হয়েছে। গত ৮ মে যবিপ্রবির ল্যাবে সর্বপ্রথম দুজন করোনা রোগীর নমুনায় ভারতীয় এ ধরন শনাক্ত হয়। যাশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এখন পর্যন্ত ভারতফেরত ৫৫০ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১২ জনের শরীরে করোনা পজিটিভ পায়। 

ভারতফেরত রোগীদের মধ্যে সাতজনের শরীরে ভারতীয় ভ্যারিয়ান্ট ই.১.৬১৭.২ পাওয়া যায়। এদের মধ্যে দুজন করোনা পজিটিভ হয়েই দেশে আসেন। কেউ কেউ উপসর্গহীন অবস্থায়ও পজিটিভ হন। যবিপ্রবির ল্যাবে এ পর্যন্ত ভারতফেরত ও স্থানীয়সহ ১৫ জনের শরীরে করোনা ভাইরাসের ভারতীয় ধরন শনাক্ত হলো।   

গবেষক দলটি জানিয়েছে, ভারতীয় ধরনটি ৫০ শতাংশের বেশি সংক্রমণের ক্ষমতা রাখে। মাস্ক ব্যবহারসহ কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। সীমান্তবর্তী জেলাগুলোর অধিবাসীদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে টিকার আওতায় আনার সুপারিশ করছে গবেষক দলটি।   

গবেষক দলটি ভারত থেকে আগত সবাইকে করোনা নেগেটিভ না হওয়া পর্যন্ত প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে রেখে পরীক্ষার আহ্বান জানিয়েছে। 
 

Dutch-Bangla Bank
TELETALK
স্পটলাইট বিভাগের সর্বাধিক পঠিত