?>

বুধবার   ১৪ এপ্রিল ২০২১ || বৈশাখ ২ ১৪২৮ || ০১ রমজান ১৪৪২

অপরাজেয় বাংলা :: Aparajeo Bangla

অষ্টম ঢাকা আন্তর্জাতিক মোবাইল চলচ্চিত্র উৎসবের কার্যক্রম শুরু

এন্টারটেইনমেন্ট ডেস্ক

১৩:৩৯, ৫ এপ্রিল ২০২১

আপডেট: ১৩:৪৫, ৫ এপ্রিল ২০২১

১৭৭

অষ্টম ঢাকা আন্তর্জাতিক মোবাইল চলচ্চিত্র উৎসবের কার্যক্রম শুরু

ঢাকা আন্তর্জাতিক মোবাইল চলচ্চিত্র উৎসব (ডিআইএমএফএফ) এর অষ্টম আসরের জন্য চলচ্চিত্র জমা কার্যক্রম শুরু হয়েছে। ইন্ডিপেন্ডেন্ট, কম্পিটিশন এবং ওয়ান মিনিট এই তিনটি ক্যাটাগরি নিয়ে শুরু হতে যাচ্ছে ডিআইএমএফএফ। 

‘ইন্ডিপেন্ডেন্ট’ বিভাগের জন্য যে কেউ পৃথিবীর যে কোনো প্রান্ত থেকে চলচ্চিত্র জমা দিতে পারবেন। শুধু তাই নয় ইন্ডিপেন্ডেন্ট বিভাগে থাকছে  ‘ডিআইএমএফএফ বেস্ট ফিল্ম অ্যাওয়ার্ড’ । এ বিভাগের চলচ্চিত্র যেকোনো দৈর্ঘ্যের হতে পারবে

‘কম্পিটিশন’ বিভাগের জন্য শুধুমাত্র বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া শিক্ষার্থীরা চলচ্চিত্র জমা দিতে পারবেন; এই বিভাগ থেকে সেরা চলচ্চিত্রটি পাবে ‘সিনেমাস্কোপ বেস্ট ফিল্ম অ্যাওয়ার্ড’। এ বিভাগের জন্য চলচ্চিত্রের  দৈর্ঘ্য সর্বোচ্চ ১০ মিনিট

প্রথম থেকে দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীরা ‘ওয়ান মিনিট’ বিভাগের জন্য চলচ্চিত্র জমা দিতে পারবেন এবং এই বিভাগের সেরা চলচ্চিত্রটি পাবে ‘ইউল্যাব ইয়াং ফিল্ম মেকার অ্যাওয়ার্ড’। এ বিভাগের চলচ্চিত্রের দৈর্ঘ হতে পারবে সর্বোচ্চ ১ মিনিট । 

টাইটেল ও ক্রেডিট লাইন মিলিয়ে চলচ্চিত্রের  দৈর্ঘ্য হতে হবে। প্রত্যেক প্রতিযোগী সর্বোচ্চ ২টি চলচ্চিত্র জমা দিতে পারবেন। প্রত্যেকটি চলচ্চিত্রের সাথে ইংরেজি সাব-টাইটেল যুক্ত থাকা বাধ্যতামূলক।

নতুন প্রজন্ম,নতুন প্রযুক্তি ও নতুন যোগাযোগ এই শিরোনামে ঢাকা আন্তর্জাতিক মোবাইল চলচ্চিত্র উৎসবের যাত্রা শুরু হয় ২০১৫ সালে। এর আয়োজনে রয়েছে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস বাংলাদেশ (ইউল্যাব)। 

ঢাকা আন্তর্জাতিক মোবাইল চলচ্চিত্র উৎসবের অষ্টম আসর বসবে ২০২২ সালের ২৫ ও ২৬ ফেব্রুয়ারি।  

১৯৫৭ সালের ৩ এপ্রিল  বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান প্রাদেশিক পরিষদে চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশন (এফডিসি) গঠনের প্রস্তাব উত্থাপন করেন।  সেইদিনকে স্মরণ করে ২০১২ সালে প্রথমবার জাতীয় চলচ্চিত্র দিবস উদযাপন করা হয়। 

এই বিশেষ দিনটিকে স্মরণ করেই প্রতিবছর ঢাকা আন্তর্জাতিক মোবাইল চলচ্চিত্র উৎসবে আনুষ্ঠানিকভাবে চলচ্চিত্র জমা কার্যক্রম শুরু হয়।

উৎসবটির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে “আন্ডারস্ট্যান্ডিং মোটিভেশনস টু ইউজ মোবাইল ফিল্মমেকিং ইন দি মেইনস্ট্রিম ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি" এর উপর প্যানেল আলোচনা আয়োজন করা হয়েছিল। প্যানেল বক্তা হিসেবে অংশগ্রহণ করেন চলচিত্র বিশেষজ্ঞ ও সমালোচক সাদিয়া খালিদ রীতি ও নির্মাতা আনাম বিশ্বাস। 

অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন মিডিয়া স্টাডিজ এন্ড জার্নালিজম বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ড. জুড উইলিয়াম হেনিলো। তিনি বলেন, “মুঠোফোনের মাধ্যমে একটি চলচ্চিত্রের গল্প বলা এখন অনেক সহজ।তাই আগামী বছর আমরা আরো ভালো চলচ্চিত্র পাবো বলে আশা করছি। ডিভাইসের উন্নত ক্ষমতার সাহায্যে গল্প বলার নতুন উপায় নিয়ে বিশ্বজুড়ে চলচ্চিত্র নির্মাতারা আমাদের অবাক করে দেবেন প্রত্যাশা করি। হয়তো বা মোবাইল ফিল্মমেকিং ভবিষ্যতে আরো সুপরিচিত হয়ে উঠবে।”

গত আসরের সেরা চলচিত্র অ্যাওয়ার্ড জয়ী ফ্রান্সের বেরাত গোক্কুসও উপস্থিত ছিলেন। তিনি বলেন, “এই উৎসবে অংশ নেওয়া দুর্দান্ত ছিল কারণ সত্যই এটি খুব পেশাদার। সত্যি বলতে, আমি যখন আমার ফিল্মটি জমা দিয়েছি, তখন আমি এই ধরণের বড় উৎসব আশা করি না। কারণ সাধারণত মোবাইল চলচ্চিত্র উৎসববগুলি স্বল্প পরিসরে হয়। তার মধ্যে আপনাদের উৎসব সেরাদের মধ্যে একটি। আমার চলচ্চিত্রটি গ্রহণ করার জন্য এবং আমাকে সেরা চলচ্চিত্রের পুরষ্কার দেওয়ার জন্য ডিআইএমএফএফ-কে ধন্যবাদ।”

উৎসবের বিষয়ে বিস্তারিত জানা যাবে ঢাকা আন্তর্জাতিক মোবাইল চলচ্চিত্র উৎসবের ওয়েবসাইটট থেকে (www.dimff.net) । 

DBBL Nexas Card
TELETALK