সোমবার   ১৬ মে ২০২২ || ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ || ১২ শাওয়াল ১৪৪৩

অপরাজেয় বাংলা :: Aparajeo Bangla

ইসি গঠনে আইনের খসড়ায় পরিবর্তন আসছে

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

১৯:৫৯, ২৪ জানুয়ারি ২০২২

১৬৪

ইসি গঠনে আইনের খসড়ায় পরিবর্তন আসছে

নির্বাচন কমিশন (ইসি) গঠনে করা আইনের খসড়ায় সামান্য কিছু পরিবর্তন আসছে
নির্বাচন কমিশন (ইসি) গঠনে করা আইনের খসড়ায় সামান্য কিছু পরিবর্তন আসছে

নির্বাচন কমিশন (ইসি) গঠনে করা আইনের খসড়ায় সামান্য কিছু পরিবর্তন আসছে। প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) ও নির্বাচন কমিশনার হিসেবে নিয়োগের যোগ্যতা ও অযোগ্যতার শর্তে দুটি পরিবর্তন আনার সুপারিশ করে প্রতিবেদন চূড়ান্ত করেছে আইন মন্ত্রণালয়–সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি।

**ইসি গঠনের বিল সংসদে উত্থাপন, বৈধতা পেতে যাচ্ছে সার্চ কমিটি

সোমবার (২৪ জানুয়ারি) জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে নির্বাচন কমিশনার এবং নির্বাচন কমিশনার নিয়োগ বিল–২০২২ পরীক্ষা করে প্রতিবেদন চূড়ান্ত করা হয়। আগামী বুধবার জাতীয় সংসদের বৈঠকে প্রতিবেদন উপস্থাপন করা হতে পারে।

সোমবার সংসদীয় কমিটির বৈঠক শেষে বিলে পরিবর্তন আনার কথা সাংবাদিকদের জানান আইন মন্ত্রণালয়–সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি শহীদুজ্জামান সরকার। রবিবার বিলটি জাতীয় সংসদে উত্থাপনের পর তা পরীক্ষা করে সাত দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য সংসদীয় কমিটিতে পাঠানো হয়েছিল।

সংসদে উত্থাপিত বিলে সিইসি ও কমিশনারদের যোগ্যতাসংক্রান্ত ধারায় বলা হয়েছিল, সিইসি ও কমিশনার হতে গেলে কোনো গুরুত্বপূর্ণ সরকারি, বিচার বিভাগীয়, আধা সরকারি বা বেসরকারি পদে তার অন্যূন ২০ বছর কাজের অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। এই ধারায় কিছুটা সংশোধনী এনে সরকারি, বিচার বিভাগীয়, আধা সরকারি বা বেসরকারি পদের পাশাপাশি ‘স্বায়ত্তশাসিত ও অন্যান্য পেশা’ ‍যুক্ত করার সুপারিশ করেছে সংসদীয় স্থায়ী কমিটি।

এ ছাড়া অযোগ্যতার ক্ষেত্রে ৬(ঘ) ধারায়ও পরিবর্তন আনা হচ্ছে। এ ধারায় বলা হয়েছিল, নৈতিক স্খলনজনিত ফৌজদারি অপরাধে দোষী সাব্যস্ত হয়ে অন্যূন দুই বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত হলে সিইসি ও কমিশনার হওয়া যাবে না। এখানে দুই বছরের কারাদণ্ড উঠিয়ে শুধু ‘কারাদণ্ড’ রাখার সুপারিশ করা হয়েছে। অর্থাৎ নৈতিক স্খলনজনিত ফৌজদারি অপরাধে যেকোনো মেয়াদে কারাদণ্ডে দণ্ডিত কোনো ব্যক্তি সিইসি বা নির্বাচন কমিশনার হিসেবে নিয়োগ পাওয়ার যোগ্য হবেন না।

শহীদুজ্জামান সরকার সাংবাদিকদের বলেন, সংসদীয় স্থায়ী কমিটি বিস্তারিত আলোচনা করে প্রতিবেদন চূড়ান্ত করেছে। যোগ্যতা ও অযোগত্যার জায়গায় কিছু পরিবর্তন আনা হয়েছে। সেভাবেই সংসদে প্রতিবেদন দেওয়া হবে। 

তিনি বলেন, ‘দুই বছরের কারাদণ্ডের জায়গাটা পরিবর্তন করা হয়েছে। দুই বছর উঠিয়ে কারাদণ্ড করে দেওয়া হয়েছে। আর সরকারি, বিচার বিভাগীয়, আধা সরকারি বা বেসরকারি পদের পাশাপাশি ‘স্বায়ত্তশাসিত ও অন্যান্য পেশা’ যুক্ত করার জন্য সুপারিশ করেছি।’

সার্চ কমিটির মাধ্যমে করা আগের দুটি কমিশনকে আইনি বৈধতা দেওয়ার বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে শহীদুজ্জামান সরকার বলেন, অনেকে এটাকে ইনডেমনিটি বলছেন, তবে এটা ইনডেমনিটি নয়। বিলের ৯ দফায় আগের দুটি সার্চ কমিটিকে আইনি বৈধতা দেওয়া হয়েছে।
 

Kabir Steel Re-Rolling Mills (KSRM)
Rocket New Cash Out
Rocket New Cash Out
Payment in BKash
খবর বিভাগের সর্বাধিক পঠিত