বৃহস্পতিবার   ০৭ জুলাই ২০২২ || ২৩ আষাঢ় ১৪২৯ || ০৫ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৩

অপরাজেয় বাংলা :: Aparajeo Bangla

পানি কিছুটা কমলেও আতঙ্কে তিস্তা পাড়ের মানুষ

হাসানুজ্জামান হাসান, লালমনিরহাট

১৪:০৮, ২০ জুন ২০২২

১৩৮

পানি কিছুটা কমলেও আতঙ্কে তিস্তা পাড়ের মানুষ

লালমনিরহাটের ডালিয়া পয়েন্টে সোমবার (২০ জুন) সকাল ৯টার দিকে তিস্তা নদীর পানি কমে বিপৎসীমার মাত্র ৪ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এর আগে সকাল ৬টার দিকে পানি ৭ সেন্টিমিটার নিচে ছিল। 

এদিকে নদীটির পানি বিপৎসীমার নিচে থাকলেও ভয়ে রয়েছেন তিস্তা পাড়ের মানুষ। ভারতের দো-মহনী পয়েন্টে সকাল ৬টার দিকে তিস্তার পানি বিপদসীমার ৩ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছিল। সেই পানি বাংলাদেশের ভাটি নীলফামারীর ডালিয়া পয়েন্টের দিকে ধেয়ে আসছে বলে ভারতীয় বিভিন্ন ওয়েবসাইটের মাধ্যমে জানা গেছে। 

ডালিয়া পয়েন্টে দুপুরে পানি বিপৎসীমার উপরে চলে যেতে পারে বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তারা। তারা নিম্নাঞ্চলে বসবাসকারীদের দ্রুত নিরাপদ স্থানে সরে যেতে অনুরোধ করেছেন। 

এর আগে রবিবার সকাল ৬টার দিকে এ পয়েন্টে পানি বিপদসীমার ১২ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হলেও সারাদিনে পানি অনেক কমে যায়। রাত ৯টার দিকে পানি ১৪ সেন্টিমিটার নিচে নেমে যায়। এতে প্লাবিত হওয়া তিস্তার চর ও নিম্নাঞ্চল থেকে পানি নেমে যেতে শুরু করে। 

কেল্লাপাড়া চরের বাসিন্দা রবিউল ইসলাম জানান, নদীর পানি কমায় আমাদের বাড়ি থেকে রোববার বিকালে পানি নেমে গেছে। তবে সোমবার দুপুরে নাকি আবার পানি বাড়বে। এজন্য প্রস্তুতি নিচ্ছি। 

গড্ডিমারী ইউপি চেয়ারম্যান আবু বক্কর সিদ্দিক শ্যামল বলেন, এখন আমার ইউনিয়নের নিম্নাঞ্চলে পানি নেই। তবে উজান থেকে দ্রুতগতিতে পানি আসায় আবারো পানি বাড়তে পারে। এজন্য আমি নিম্নাঞ্চলে বসবাসকারীদের নিরাপদে সরে যেতে বলেছি।

ডালিয়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আসফা উদ দৌলা জানান, সোমবার সকাল ৯টা পর্যন্ত বিপৎসীমার ৪ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে পানি প্রবাহিত হয়। তবে উজান হতে খুব বেশি পরিমানে পানি ধেয়ে আসছে। আমরা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছি সবসময়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে তিস্তা ব্যারাজের ৪৪টি জলকপাট খুলে রাখা হয়েছে।

Kabir Steel Re-Rolling Mills (KSRM)
Rocket New Cash Out
Rocket New Cash Out
BKash Payment
Bkash Payment
খবর বিভাগের সর্বাধিক পঠিত